আদিম মানুষ বসবাসকারী : কিভাবে বিবর্তনের মধ্য দিয়ে আদিম মানুষ শিকারী খাদ্য সংগ্রহ থেকে স্থায়ী বসবাসকারী তে পরিণত হয়

আদিম মানুষ বসবাসকারী – কিভাবে বিবর্তনের মধ্য দিয়ে আদিম মানুষ শিকারী খাদ্য সংগ্রহ থেকে স্থায়ী বসবাসকারী তে পরিণত হয় – ইতিহাসের ধারা আলোচনা করলে মানুষের বিবর্তন গুলি আমরা খুব ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারি মানুষের এই বিবর্তনের মধ্যে সবথেকে উল্লেখযোগ্য ঘটনা মানুষ কিভাবে শিকারী থেকে বর্তমানের বসবাসকারী গোষ্ঠী তৈরি করল।

পৃথিবীতে প্রাণের আবির্ভাব ঘটে মোটামুটি কুড়ি লক্ষ বছর আগে এই কুড়ি লক্ষ বছর আগে মানুষ বর্তমান দিনের মতো ছিল না তারা ছিল একাকী তাদের জীবন ছিল নিঃসঙ্গ। কিভাবে মানুষের এই বিবর্তন হল আর কিভাবে মানুষ শিকারি থেকে আজকের সামাজিক প্রাণী তে সৃষ্টি হল তা নিয়ে আলোচনা করব

 

আদিম মানুষ কারা ?

পৃথিবীতে মানুষ সৃষ্টি হওয়ার পর তারা ছিল যাযাবর প্রজাতীয় নিজেদের খাবার নিজেরা তৈরি করতে পারত না নির্ভর করত বিভিন্ন জীবজন্তুর উপর আর প্রকৃতিতে তৈরি হওয়া ফল ফুলের উপর। এই প্রসঙ্গে আমরা আদম ও ইভ এর গল্পটি স্মরণ করতে পারি।

সেই যাযাবর শ্রেণীর মানুষ যারা সমস্ত পৃথিবীর কিছু কিছু আঞ্চলিক ক্ষেত্রে নিজেদেরকে টিকিয়ে রেখেছিল যারা বসবাস করত পাহাড়ে পাহাড়ের গোয়ায় জঙ্গলে তাদেরকে আমরা এক কথায় আদিম মানুষ বলে চিনি।

আদিম মানুষ বসবাসকারী কিভাবে আদিম মানুষের কাহিনী, আদিম মানুষের ইতিহাস,আদিম মানব,আদিম মানবের উৎপত্তি কিভাবে হয়েছিল ?, মানুষ কিভাবে সৃষ্টি হয়েছে, বিবর্তনের মধ্য দিয়ে আদিম শিকারি মানুষ কিভাবে খাদ্য সংগ্রাহক, আদিম মানুষের জীবন যাত্রা,আদিম যুগের মানুশ,ভারতে বসবাসকারী মুসলিম, আদি মানব মিলন কিভাবে করতো,স্থায়ী বসবাসকারী,ভারতে বসবাসকারী মুসলিমরাও হিন্দু, আমাজন জঙ্গলের মানুষ, আদিম মানুষদের বিবর্তনের ইতিহাস,আদিম মানব জীবন,জঙ্গলে বসবাসকারী যাযাবর সম্প্রদায়, আদিম মানব video,কিভাবে,পিগমি মানুষ,মানুষ

ইতিহাস বিদদের ধারণা প্রথম আফ্রিকায় আদিম মানুষের সন্ধান পাওয়া যায় এবং সেখান থেকে ধীরে ধীরে সমস্ত পৃথিবীতে এই বর্তমান দিনের মানুষ ছড়িয়ে পড়ে তবে মানুষের এই বিবর্তন একটি প্রজাতির মধ্যে ঘটেনি। এই বিবর্তন হোমো হাবিলিস থেকে শুরু করে আজকের বর্তমান হোমোসেপিয়েন্স এসে পৌঁছেছে।

 

আদিম মানুষের জীবন

আদিম মানুষদের জীবনযাত্রা ছিল খাদ্য সংগ্রহ পশুপালন করা কি করে ফসল ফলাতে হয় তার কোন ধারণা তাদের মধ্যে ছিল না তারা প্রকৃতির বুকে সৃষ্টি হওয়া ফল ফুল আহার হিসাবে গ্রহণ করত।

প্রয়োজনে পশু শিকার করত তবে প্রশংসার করতে গিয়ে যখন মারা যেত তখন নিজেদের বাঁচানোর জন্য তৈরি করতে শুরু করল বিভিন্ন রকম অস্ত্রশস্ত্র তার বেশিরভাগ ছিল পাথর এবং গাছের ডাল।

পরবর্তী সময়ে এই পাথর এবং গাছের ডালকে নিয়ে তৈরি করল নতুন অস্ত্র তা আগের থেকে অনেক বেশি সহজ ভাবে পশুকে হত্যা করা সম্ভব ছিল যাই হোক এদেরকেই আমরা আদিম মানুষ বলে চিহ্নিত করি

 

কিভাবে বিবর্তনের মাধ্যমে আধুনিক মানুষ সৃষ্টি হল

ধীরে ধীরে মানুষ এর চাহিদার পরিবর্তন হলো মানুষ এলোমেলো না থেকে একসঙ্গে বসবাস করতে চাইল সৃষ্টি হল গোষ্ঠীর এই গোষ্ঠীবদ্ধ মানুষ তখন অনেকটা শক্তি অর্জন করল গোষ্ঠীবদ্ধভাবে বিভিন্ন প্রান্তে এই ধরনের গোষ্ঠীগুলি তখন এক গোষ্ঠী অন্য গোষ্ঠীর উপর আক্রমণ করতে শুরু করল এবং নিজেদের শক্তিকে প্রমান করতে শুরু করল।

এমত অবস্থায় এই গোষ্ঠী মানুষেরা নিজেদের অস্তিত্বকে এবং শক্তিকে আর ব ভালোভাবে প্রতিষ্ঠা করার জন্য স্থায়ী হয়ে বসবাস করার পরিকল্পনা করে এবং পাহাড়ের কোন গুহায় এরা স্থায়ীভাবে বসবাস করতে শুরু করে।

প্রথমে যখন মানুষ যাযাবর ছিল তখন বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে বেড়ানোর জন্য খাবারের অভাব হতো না কিন্তু ধীরে ধীরে একতাবদ্ধ বা গোষ্ঠীবদ্ধ জীবনযাত্রার জন্য একই স্থানে বসবাস করতে শুরু করল এর ফলে ওই অঞ্চলে  যে সকল খাবার পাওয়া যেত তা বেশিদিন যেত না। শুরু হলো খাদ্য সংকট এরপর থেকে আদিম মানুষ শুরু করল কৃষিকাজ বা চাষবাস করা।

বিভিন্ন পশুর মাধ্যমে মাটি খুঁড়ে তারা চাষ করতে শুরু করল এভাবে শুরু হলো কৃষিভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা। যেখানে আগে ছিল জাদাবর তারা হয়ে পড়ল কৃষিভিত্তিক সামাজিক মানুষ। এই কৃষিভিত্তিক সামাজিক মানুষ একটা সময় দেখল তাদের গোষ্ঠী বা অঞ্চলে যে পরিমাণ খাবারের প্রয়োজন তার থেকে অধিক পরিমাণ খাবার দ্বারা উৎপাদন করতে সক্ষম।

অন্যদিকে অন্য কোন গোষ্ঠীর মানুষ সেই খাবার তৈরি করতে সক্ষম নয়। তখন তারা নিজেদের গোষ্ঠীর থেকে উৎপন্ন হওয়া বিভিন্ন বস্তু অন্য গোষ্টিতে বিক্রি করতে শুরু করল তবে অর্থের মাধ্যমে নয় বিনিময় প্রথার মাধ্যমে।

এই বিনিময় প্রথার মাধ্যমে কোন গোষ্ঠী সবল হতে শুরু করল কোন গোষ্ঠী দুর্বল হতে শুরু করল সবল গোষ্ঠীর মানুষজন তাদের উৎপাদিত শস্য দুর্বল গোষ্ঠীর কাছে বিনিময় করে এই গোষ্ঠীর মানুষজন তাদের গোষ্ঠীতে নিয়ে যেতে লাগলো সৃষ্টি হল দাস ব্যবস্থা।

তবে এখানে দাস ব্যবস্থাটাই মুখ্য নয় এই বিনিময় প্রথার মাধ্যমে প্রথমে বিভিন্ন পশু বিনিময় করে ব্যবসা-বাণিজ্য চলত

এই গোষ্ঠীবদ্ধ মানুষ নিজেদের গোষ্ঠীর মধ্যে কোন একজন বয়স্ক মানুষকে তাদের গোষ্ঠীর প্রধান রূপে বিবেচনা করতে শুরু করল। তৈরি হল গোষ্ঠীপতি । এই গোষ্ঠীপতি সমস্ত রকম কাজকর্মে তাদের পরামর্শ দান করতো।

এরপর কয়েকটি গোষ্ঠী পাশাপাশি অবস্থানের ফলে একসাথে একটি আঞ্চলিক শক্তি গড়ে তুলল সৃষ্টি হল রাজা কিন্তু সেটি আঞ্চলিক রাজা আমরা ঋকবেদে যে ১০ রাজার যুদ্ধের কথা জানতে পারি সেই রাজারা সকলেই আঞ্চলিক রাজা ছিলেন। এই সকল আঞ্চলিক ক্ষেত্রগুলি তখন ধীরে ধীরে মানুষজনের ব্যবসা-বাণিজ্যের কেন্দ্র হয়ে দাঁড়ালো এক অঞ্চলের বাণিজ্যিক বণিকরা অন্য অঞ্চলের বিভিন্ন বস্তু সামগ্রী বিনিময় প্রথার মাধ্যমে বিক্রি করতে শুরু করল হল মিত্রতা বা বন্ধুত্ব।

তবে সকল ক্ষেত্রেই মিত্রতা গরে উঠত না কখনো কখনো শত্রুতাও দেখা যেত কারণ প্রায় সময়ই এই সকল আঞ্চলিক রাজারা তাদের অঞ্চলকে বাড়াতে চাইতো। আর এই বাড়াতে যাওয়ার ফলেই সৃষ্টি হতো যুদ্ধ। যুদ্ধের মাধ্যমে এক রাজা অন্য রাজার সমস্ত অঞ্চলকে তার হাতে নিয়ে নিতো। ধীরে ধীরে সে হয়ে উঠতো ক্ষমতাবান রাজা।

ধীরে ধীরে মধ্যযুগের ইতিহাস লক্ষ্য করলে দেখা যাবে এই সকল বণিক গোষ্ঠী অনেক শক্তিশালী ব্যবসা তারে পরিণত হলো তাদের হাতে অঢেল সম্পত্তির ভান্ডার গড়ে উঠলো। কখনো কখনো কোন কোন আঞ্চলিক রাজার ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায় এই বণিকের গোষ্ঠী সেই রাজার পৃষ্ঠকর্তা রূপে বিবেচিত হতো।।

এই আঞ্চলিক শক্তিগুলি যখন নিজেদের সুরক্ষা রাজার দ্বারা শুরু হলো তখন শুরু হলো স্থায়ী বসবাস। একসময় যে মানুষ ছিল ভবঘুরে যাযাবর প্রকৃতির তারা প্রথমে গোষ্ঠীবদ্ধ পরে আঞ্চলিক এবং উপরে রাজ্য গড়ে তুলল। তারা হয়ে গেল সেই বসবাসকারী মানুষ আর এই মানুষ বর্তমান দিনের সভ্যতা গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে।।

তবে মোটামুটি ভাবে বলা যায় নব্য প্রস্তর যুগে পৌঁছে যাযাবর শ্রেণীর মানুষ তারা অনেকটা স্থায়ী হয়ে বসবাস করতে শুরু করে কারণ এই সময়ে অনেকটা আঞ্চলিক ভাবে তারা একতাবদ্ধ হয়ে থাকত। প্রয়োজনে তাদের শিকারের রীতিনীতিকে পর্যন্ত তারা ত্যাগ করেছিল যেমন যাযাবর মানুষজন গোষ্ঠীবদ্ধ হয়ে থাকার সময় নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর মানুষেরা নির্দিষ্ট এলাকায় স্বীকার করতে পারতো কিন্তু কখনো বড় শিকার করতে হলে অনেক গুলি গোষ্ঠীর মানুষ একতাবদ্ধ হয়ে সেই স্বীকার কে ভাগ করে নিত একে বলা হত ক্লাইন।

যাইহোক যাযাবর মানুষ কিভাবে তারা তাদের জীবনযাত্রা কে উন্নত করার জন্য স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করল তার একটা বিস্তারিত আলোচনা বা ধারণা উপরে দেয়া হলো এছাড়া বিভিন্ন ঐতিহাসিক বিভিন্নভাবে এ মতবাদকে ব্যাখ্যা করেছেন কিন্তু সর্বজনীন রাজ্য মতবাদ এখানে স্বীকৃতি হিসেবে দেয়া হলো |

আদিম মানুষ বসবাসকারী কিভাবে আদিম মানুষের কাহিনী, আদিম মানুষের ইতিহাস,আদিম মানব,আদিম মানবের উৎপত্তি কিভাবে হয়েছিল ?, মানুষ কিভাবে সৃষ্টি হয়েছে, বিবর্তনের মধ্য দিয়ে আদিম শিকারি মানুষ কিভাবে খাদ্য সংগ্রাহক, আদিম মানুষের জীবন যাত্রা,আদিম যুগের মানুশ,ভারতে বসবাসকারী মুসলিম, আদি মানব মিলন কিভাবে করতো,স্থায়ী বসবাসকারী,ভারতে বসবাসকারী মুসলিমরাও হিন্দু, আমাজন জঙ্গলের মানুষ, আদিম মানুষদের বিবর্তনের ইতিহাস,আদিম মানব জীবন,জঙ্গলে বসবাসকারী যাযাবর সম্প্রদায়, আদিম মানব video,কিভাবে,পিগমি মানুষ,মানুষ

আদিম মানুষ বসবাসকারী কিভাবে

আদিম মানুষের কাহিনী, আদিম মানুষের ইতিহাস,আদিম মানব,আদিম মানবের উৎপত্তি কিভাবে হয়েছিল ?, মানুষ কিভাবে সৃষ্টি হয়েছে, বিবর্তনের মধ্য দিয়ে আদিম শিকারি মানুষ কিভাবে খাদ্য সংগ্রাহক, আদিম মানুষের জীবন যাত্রা,আদিম যুগের মানুশ,ভারতে বসবাসকারী মুসলিম, আদি মানব মিলন কিভাবে করতো,স্থায়ী বসবাসকারী,ভারতে বসবাসকারী মুসলিমরাও হিন্দু, আমাজন জঙ্গলের মানুষ, আদিম মানুষদের বিবর্তনের ইতিহাস,আদিম মানব জীবন,জঙ্গলে বসবাসকারী যাযাবর সম্প্রদায়, আদিম মানব video, কিভাবে, পিগমি মানুষ,মানুষ

আদিম মানুষের কাহিনী,আদিম মানুষের ইতিহাস,আদিম মানব,আদিম মানবের উৎপত্তি কিভাবে হয়েছিল ?, মানুষ কিভাবে সৃষ্টি হয়েছে,বিবর্তনের মধ্য দিয়ে আদিম শিকারি মানুষ কিভাবে খাদ্য সংগ্রাহক, আদিম মানুষের জীবন যাত্রা,আদিম যুগের মানুশ,ভারতে বসবাসকারী মুসলিম, আদি মানব মিলন কিভাবে করতো,স্থায়ী বসবাসকারী,ভারতে বসবাসকারী মুসলিমরাও হিন্দু, আমাজন জঙ্গলের মানুষ,আদিম মানুষদের বিবর্তনের ইতিহাস,আদিম মানব জীবন, জঙ্গলে বসবাসকারী যাযাবর সম্প্রদায়,আদিম মানব video, কিভাবে,পিগমি মানুষ,মানুষ

আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী  আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী  আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী আদিম মানুষ বসবাসকারী 

Leave a Comment