Seller.json এডসেন্স এ কিভাবে ঠিক করতে হবে।

     আমরা যারা গুগল এডসেন্স ব্যবহার করি তারা সম্প্রতি একটি আপডেট বা নোটিফিকেশন লক্ষ্য করি seller.json নামের। যেখানে আমাদের বলা হয়েছে আমরা যেন আমাদের গুগল এডসেন্সের এই seller.json ফাইলটিকে সঠিকভাবে ব্যবহার করি। 

    কিন্তু আমাদের কাছে কোন সঠিক তথ্য নেই যে কি এই সেলার জেসন ফাইল। এই করণে আমরা এই আর্টিকেলটিতে seller.json ফাইল সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানবো কি করে তা আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে অ্যাডসেন্স এর উপর ব্যবহার করব তা জেনে নেব।


Seller.json ফাইল কি ? 


     বেশ কয়েকদিন আগে গুগল এডসেন্স ব্যবহার কারীরা একটি নোটিফিকেশন পেয়েছিল যেখানে তাদেরকে জানানো হচ্ছিল যে প্রত্যেক ব্লগার বা ওয়েবসাইট ব্যবহারকারীরা যেন অবশ্যই তাদের ওয়েবসাইটের ফাইল ads.txt ফাইল আপলোড করে। 

    এর ফলে যেকোনো অ্যাডভারটাইজার বা সেলার খুব সহজেই সেই ওয়েবসাইট সম্পর্কে অবগত হয়ে তার প্রয়োজন ও ইচ্ছামত আটকে চালাতে সক্ষম হবে। হয়তো আমরা সবাই সেই ads.txt ইফাইল আমরা ওয়েবসাইটে ব্যবহার করে ফেলেছি। যদি আপনি ads.txt ফাইল ব্যবহার না করে থাকেন তবে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করেন আমরা তার বিস্তারিত তথ্য জানিয়ে দেবো।

     Ads.txt ফাইল এর পরবর্তী ধাপ হলো গুগোল অ্যাডসেন্সে এর seller.json ফাইল। এই ফাইলগুলি সাধারণত আমাদের ওয়েবসাইটের বিস্তারিত তথ্য জানতে সাহায্য করে। যে সমস্ত সেলার এডভেটাইজ দিয়ে তাদের বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করে থাকে, এটি সাধারণত তাদের জন্য আমাদের ওয়েবসাইট কে উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। 

    সাধারণভাবে তখন ঐ সকল অ্যাডভারটাইজার আমাদের ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য ও বিষয়গুলি বুঝতে পারবে তখন তার প্রয়োজন অনুযায়ী নির্দিষ্ট পরিমাণ CPC যুক্ত বিভিন্ন অ্যাড আমাদের ওয়েবসাইটের উপর সেই সেলার দেখাতে পারবে। 

   এখানে আমরা ধাপে ধাপে আলোচনা করব যে কিভাবে এই SELLER.JSON ফাইল আমরা আমাদের ওয়েবসাইট ও গুগল এডসেন্স এর উপর প্রয়োগ করতে পারব। 


SELLER.JSON ফাইল কি করে ঠিক করব ?


প্রথম ধাপ ::   সরাসরি নিজের এডসেন্স একাউন্টের উপরে যেখানে নোটিফিকেশন এসেছে সেখানে একটি একশন / Action অপশন দেখা যাবে। যেটাতে ক্লিক করলে সরাসরি আপনি আপনার এডসেন্স একাউন্টের ইনফর্মেশন পেজে চলে যাবেন।

Seller.json এডসেন্স এ কিভাবে ঠিক করতে হবে।


দ্বিতীয় ধাপ ::   এখানে আপনার এডসেন্স একাউন্টের পাবলিশার আইডি, কাস্টমার আইডি, টাইম জোন, ও বিভিন্ন অ্যাক্টিভ পরিষেবাগুলি দেখতে পাবেন। ঠিক এদের নিচে একটি অপশন দেখা যাবে সেলার ইনফর্মেশন ভিজিবিলিটি / seller information visibility ।  


তৃতীয় ধাপ ::   তৃতীয় পর্যায়ে এসে আপনাকে দেখতে হবে অটোমেটিক ভাবে সেলার ইনফর্মেশন ভিজিবিলিটি এই অপশনটিতে কনফিডেনসিয়াল / confidential অপশনটি অন করা আছে। সাধারণভাবে কনফিডেনশিয়াল এর অর্থ হল আপনার ওয়েবসাইটের বিভিন্ন বিষয়গুলি সেলার বা এডভেটাইজ এর কাছে পর্যন্ত পৌঁছাবে না। 


চতুর্থ ধাপ ::    এখানে পরপর দুটি অপশন দেখা যাবে একটি হল কনফিডেনসিয়াল ও অন্যটি ট্রান্সপারেন্ট / transparent । যদি আপনার এডসেন্স একাউন্টের বা ওয়েবসাইটের বিভিন্ন বিষয়গুলি সেলার বা অ্যাডভারটাইজার এর কাছে ওপেন রাখতে চান তবে আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট থেকে ট্রান্সপারেন্ট রাখতে হবে। 

Seller.json ফাইল কি


কোনটি সঠিক ::    বর্তমানে গুগল তার বিভিন্ন আপডেট গুলির মধ্য দিয়ে পাবলিশার ও এডভেটাইজ আর এর মধ্যে একটি সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন করতে চাইছেন। যার মাধ্যমে ওয়েবসাইটের বিভিন্ন বিষয়ে ও ভিজিটরদের পছন্দ অনুযায়ী তারা এড দিতে পারে। 

     কিন্তু আপনি যদি আপনার এডসেন্স একাউন্টের এই অপশনটিতে কনফিডেনশিয়াল করে রাখেন তবে তা বিভিন্ন এডভেটাইজ আর বাসের এর কাছে গোপনীয় থাকে। বর্তমানে গুগোল এই অপশনটি কে আমাদের ট্রান্সপারেন্ট ওপেন করে দেওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন। 

     সুতরাং আপনার পছন্দ অনুযায়ী আপনি এটা করতে পারেন তবুও গুগলের মত অনুযায়ী এটাকে ট্রান্সপারেন্ট করে দেওয়া যুক্তিযুক্ত বলে মনে করি। ট্রানস্পরেন্ট করার জন্য শুধু ট্রান্সপ্লান্ট এর উপর একটি ক্লিক করলে অটোমেটিক তা সেভ হয়ে যাবে। 


    এর নিচে আরেকটি অপশন আছে বিজনেস ডমিন / business Domain, এখান থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের নির্দিষ্ট ডোমেইন  টিকে ইনপুট করতে পারেন। এটি আপনার নিজস্ব বিষয় ইনপুট করলে তা সরাসরি ছেলেদের কাছে ওই ডোমেন সম্পর্কে সমস্ত তথ্য থাকবে বা ওয়েবসাইট সম্পর্কে সমস্ত তথ্য থাকবে।।